SEO ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল কিভাবে লিখবেন? । এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার নিয়ম ২০২৩

এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল কি বা কিভাবে লিখে আপনার ব্লগে দিবেন। গুগল থেকে বেশি আয় করতে পারবেন। seo ফ্রেন্ডলি বাংলায় আর্টিকেল লিখে আয় করার ব্লগ সাইটের মাধ্যমে। এছাড়াও seo friendly আর্টিকেল লিখে রাইটিং জব করতে পারবেন। আজ আমাদের ব্লগ পোস্টের মাধ্যমে সম্পূন্য SEO Guide Line দিব. বাংলা কন্টেন্ট লেখার নিয়ম জানতে সম্পূন্য আর্টিকেল মনেযোগ দিয়ে পড়ুন। আসুন তাহলে জানা যাক , আর্টিকেল কি, seo ফ্রেন্ডলি পোষ্ট লেখার নিয়ম, বাংলায় লিখে আয় করার গাইড লাইন, Content Writing Rules, আর্টিকেল রাইটিং জব ইত্যাদি চলুন এখন আমি আপনাদের জানাবো কেন আপনার আর্টিকেলকে এসইও ফ্রেন্ডলি করা উচিত।

SEO ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল কিভাবে লিখবেন? । এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার নিয়ম ২০২৩
SEO Friendly Article লেখার যে কৌশল রয়েছে সেগুলো ধাপে ধাপে আলোচনা

এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল কি বা কিভাবে লিখে আর্টিকেল ব্লগে দিবেন। গুগল থেকে বেশি আয় করতে পারবেন। SEO ফ্রেন্ডলি বাংলায় আর্টিকেল লিখে আয় করার মাধ্যম ব্লগ সাইট। এছাড়াও SEO Friendly  আর্টিকেল লিখে রাইটিং জব করতে পারবেন।

 

আজ আমাদের ব্লগ পোস্টের মাধ্যমে সম্পূন্য SEO Guide Line দিব। বাংলা কন্টেন্ট লেখার নিয়ম জানতে সম্পূন্য আর্টিকেল মনেযোগ দিয়ে পড়ুন।

 

আসুন তাহলে জানা যাক, আর্টিকেল কি, SEO ফ্রেন্ডলি পোষ্ট লেখার নিয়ম, বাংলায় লিখে আয় করার গাইড লাইন, এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার প্রয়োজনীয়তা, Content Writing Rules, আর্টিকেল রাইটিং জব ইত্যাদি বিষয় জানানো হবে।




হ্যালো বন্ধুরা। আপনারা কি এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লিখতে চান? তবে অবশ্যই আমার এই লেখাটি ফলো করুন। আজকের আর্টিকেলে আমি SEO Friendly Article লেখার যে কৌশল রয়েছে সেগুলো ধাপে ধাপে আলোচনা করবো।



বন্ধুরা কীভাবে এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লিখতে হয় তা দু এক লাইনে বুঝিয়ে দেওয়া সম্ভব নয়। এর জন্য আপনাদের সকলকে আমার সাথে শেষ পর্যন্ত ধৈর্য ধরে থাকতে হবে।



আপনারা হয়তো জানেন না গুগল সেসমস্ত আর্টিকেল গুলো টপ পজিশনে রাখে যেগুলো Google এর এলগরিদম অনুযায়ী অপটিমাইজ করা হয়। 

আচ্ছা মনে করুন আপনি একটি আর্টিকেল আপনার ওয়েবসাইটে পোস্ট করেছেন। কিন্তু সে লেখা গুগলের ফার্স্ট পেইজ তো দূরের কথা যদি গুগল সার্চ ইঞ্জিনে 'ও খুঁজে না পাওয়া যায় তাহলে ধরে নিবেন আপনার পাবলিশ করা আর্টিকেলটি ভালোভাবে অপটিমাইজ করা হয়নি।

তাই সবসময় মনে রাখবেন সার্চ ইঞ্জিনে হিউজ পরিমাণে অর্গানিক ভিজিটর নিয়ে আসার জন্য এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। 



এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল কী?

বন্ধুরা আমি এখন আপনাদের জানাবো এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল সম্পর্কে। সাধারণ ভাষায় যখন আপনারা এসইও এর সাথে সম্পর্ক রেখে কোনো কন্টেনকে অপটিমাইজেশন করবেন তখন তাকে ( SEO Friendly Article ) বলা হবে

কী বুঝতে পারেননি? মাথার উপর দিয়ে গেল? ঠান্ডা মাথায় আরেকবার ভাবুন। ধরুন আপনি On page SEO নিয়ে একটি আর্টিকেল লিখলেন। এরপর সে আর্টিকেলটি আপনার ওয়েবসাইটে পাবলিশ করলেন। 

এখন আপনি প্রশ্ন করতে পারেন অন পেইজ এসইও নিয়ে আর্টিকেল লিখলে সেটা গুগল কীভাবে বুঝবে? এজন্য একটি সহজ কথা বলি তা সবসময় মাথায় রাখবেন। গুগল যেন আপনার আর্টিকেলের ধরন বুঝতে পারে সেজন্য আপনাকে অবলম্বন করতে হবে কিছু কৌশল। যখন আপনি এই কৌশলগুলো অবলম্বন করে আপনার আর্টিকেলকে উন্নত করবেন মূলত তাকেই বলা হয় এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল।




এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার প্রয়োজনীয়তা

সার্চ ইঞ্জিন থেকে ভিজিটর আসুক এটা আমাদের সকলের চাওয়া। যদি Organic visitors আপনার মূল উদ্দেশ্য হয় তবে এই বিষয়টি আপনাকে অনেক গুরুত্বের সাথে দেখতে হবে। কারণ আপনার আর্টিকেলটি যদি পরিপূর্ণ অপটিমাইজ না হয় তাহলে গুগল আপনার আর্টিকেলটিকে Rank করাবে না। আর Rank না করলে আপনি যথেষ্ট ভিজিটর পাবেন না এটা খুব সিম্পল বিষয়।

চলুন এখন আমি আপনাদের জানাবো কেন আপনার আর্টিকেলকে এসইও ফ্রেন্ডলি করা উচিত। এটি বোঝার জন্য আপনাকে প্রথমে গুগলে যেতে হবে। সেখানে গিয়ে নিজের ইচ্ছেমতো কিছু একটা সার্চ দিন। ধরুন আপনি On page SEO লিখে সার্চ করেছেন। এরপর নিশ্চয়ই আপনি সেসব লেখা দেখতে পাচ্ছেন তাই না? যারা অন পেইজ এসইও নিয়ে আর্টিকেল লিখেছে তাদের লেখা তাদের লেখা এসেছে। 

এখন একটা বিষয় গভীরভাবে লক্ষ্য করুন। অন পেইজ এসইও নিয়ে সবাই আর্টিকেল লিখলেও গুগল কোন লেখাটি সবার উপরে দেখাচ্ছে আর কোনটাকে নিচে? 

আপনাদের নিজের লেখাকে প্রথমে শো করানোর জন্যই মূলত এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লিখতে হবে।



কীভাবে এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লিখবেন?

আর্টিকেলের প্রথম থেকে আমি একটা কথাই বারবার বলে আসছি। কন্টেন্টকে ফ্রেন্ডলি করার বেশ কয়েকটি কৌশল আছে। এতক্ষণ ধরে আমরা অনেক বিষয় জানলাম। এখন জানবো কীভাবে এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখা যায়।

চলুন এবার মূল টপিক নিয়ে আলোচনা করবো। তবে এর আগে একটি কথা বলে রাখি। আমি বারবার 'এসইও ফ্রেন্ডলি' শব্দটি ব্যবহার না করে অপটিমাইজ শব্দটি ইউস করবো। তাই যখনই অপটিমাইজ শব্দটি দেখবেন বুঝে নিবেন আমি 'এসইও ফ্রেন্ডলি' বোঝাচ্ছি।



Planning For Optimize Content 

যখন আপনি আপনার একটি কন্টেন্টকে অপটিমাইজ করতে চাইবেন তখন আপনাকে এর পূর্বে কিছু প্ল্যানিং করতে হবে। আর্টিকেল অপটিমাইজ করার প্ল্যানকে দুই ভাগে ভাগ করা হয়েছে-

Plan A- Content Quantity 

Plan B- Keyword Placement 

বন্ধুরা কোনো আর্টিকেলকে অপটিমাইজ করতে হলে সবার আগে Content Quantity এবং Keyword placement সম্পর্কে ধারণা নিতে হবে।



Plan A- Content Quantity 

কোনো আর্টিকেলকে অপটিমাইজ করতে হলে সবার আগে আপনাকে কন্টেন্ট কোয়ান্টিটি সম্পর্কে জানতে হবে। এবং তার উপর ডিপেন্ড করে অপটিমাইজ এর স্ট্রাকচার সাজাতে হবে। 

ধরুন আপনি ১০০০ শব্দের একটি আর্টিকেল লিখলেন। তাহলে আপনার অপটিমাইজ স্ট্রাকচার একরকম হবে। আর আপনি যদি ৩০০০ হাজার শব্দের আর্টিকেল লিখেল তাহলে আপনার অপটিমাইজ স্ট্রাকচার অন্যরকম হবে। 



Plan B- Keyword Placement 

কিওয়ার্ড প্লেসমেন্ট খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। আপনি যে কিওয়ার্ডের উপর আপনার কন্টেন্ট কে র‌্যাঙ্ক করাতে চান আপনার কন্টেন্টে অবশ্যই সে কিওয়ার্ডের ফ্লো থাকতে হবে। 

আপনি বুঝতে পারেননি নিশ্চয়ই! 

ধরুন আমি অন পেইজ এসইও কিওয়ার্ডকে টার্গেট করে একটি আর্টিকেল লিখেছি। তারমানে আমার ফোকাস কিওয়ার্ড হলো অন পেইজ এসইও। 

বন্ধুরা আশা করছি আপনারা এই দুটো বিষয় খুব ভালোভাবে বুঝেছেন। চলুন নতুন কিছু জানা যাক।



এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার কৌশল। 

আচ্ছা আপনাদের একটি প্রশ্ন করি। বলুন তো একটি কন্টেন্টে কী কী থাকে? অর্থাৎ কোন জিনিসের সমন্বয়ে একটি কন্টেন্ট তৈরি হয়? 

আচ্ছা আপনাদের সুবিধার জন্য আমিই বলে দিচ্ছি। একটি কন্টেন্টে Text, Image, parmalink, Title, Description, Heading Tags বিদ্যমান থাকে।

এখন আপনাকে কোনো কন্টেন্ট অপটিমাইজ করতে বলা হলে সে কন্টেন্ট যেসব বিষয়ের সমন্বয়ে গঠিত আপনাকে সে বিষয়গুলো অপটিমাইজ করতে হবে। যেমন ধরুন কন্টেন্ট এর Title, ImageUrl ইত্যাদিকে অপটিমাইজ করতে হবে। 

কীভাবে সে বিষয়গুলোকে অপটিমাইজ করে আপনার কন্টেন্টকে এসইও ফ্রেন্ডলি করা যায় এই বিষয়গুলো নিয়ে এখন আলোচনা করবো।



Optimize Starting Part Of Article. 

একটি আর্টিকেলে যেখান থেকে শুরু হয় তাকে বলা হয় Starting Part একটি আর্টিকেলের শুরুর অংশটি খুব গুরুত্বপূর্ণ। তাই এই শুরুর অংশটিকে এমনভাবে অপটিমাইজ করতে হবে যেন গুগল আপনার আর্টিকলে ইনডেক্স করার সময় খুব সহজেই বুঝতে পারে আপনি আসলে কোন বিষয়ের উপর আপনি আর্টিকেল পাবলিশ করেছেন।



Pro Tips- ভিজিটর ধরে রাখার জন্য আপনার আর্টিকেলের শুরুর অংশটি একটু আকর্ষণীয় হতে হবে। প্রথম অংশটি পড়ার পর যেন ভিজিটর যেন না চলে যায়।

আরো একটা বলে রাখি গুগল শুধুমাত্র সেসব আর্টিকেলকে Rank করে যেগুলোর মূল বিষয়বস্তু তারা ধরতে পারে]



How To Make A Readable Article?

আপনার কন্টেন্টকে আকর্ষণীয় করার জন্য বেশ কিছু টিপস আছে। চলুন এবার সেই টিপস গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জানবো।

আপনার কন্টেন্ট এ ইজি শব্দ ব্যবহার করতে হবে। যাতে ভিজিটর শেষ পর্যন্ত আপনার লেখা পড়ে। কঠিন শব্দ চয়ন করলে ভিজিটররা শব্দের অর্থ বুঝতে না পেরে আগ্রহ হারিয়ে ফেলবে ক্লিক আপনার কন্টেন্ট পুরো না পড়ে চলে যাবে।

আপনার কনটেন্টকে অবশ্যই ছোট ছোট প্যারায় ভাগ করে নিতে হবে। বড় বড় প্যারা হলে ভিজিটর তা পড়ার সময় আগ্রহ হারিয়ে ফেলবে এবং আপনার কন্টেন্টকে দ্রুত স্ক্রল করে যাবে।

আপনার কন্টেন্ট এর মাঝে মাঝে কিছু লোভনীয় শব্দ ব্যবহার করতে হবে। যেমন- Pro, Tips/ Note ইত্যাদি শব্দকে বোল্ড করে সেখানে আকর্ষণীয় শব্দ যোগ করতে হবে। তখন পাঠকের চোখে সে সব Bold করা শব্দ পড়বে। এবং তারা তা পড়বে।

এছাড়া আপনারা নিজে নিজে আরো কৌশল বের করবেন যাতে ভিজিটরকে আপনার কন্টেন্ট এ বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পারেন।



Use Multiple Image In Article 

একটি কন্টেন্ট এ যতবেশি ইমেজ ইউস করবেন আপনার কন্টেন্ট ততবেশিই এসইও ফ্রেন্ডলি হবে এবং ভিজিটর আপনার কন্টেন্ট পড়ার জন্য আগ্রহ পাবে। তাই চেষ্টা করবেন বেশি বেশি আকর্ষণীয় ইমেজ ব্যবহার করতে।



How To Optimize Article Image 

আপনার কন্টেন্ট এ কেবল ইমেজ ইউস করলেই হবে না বরং সেই ইমেজগুলোকে যথেষ্ট অপটিমাইজ করতে হবে। কেনো কনটেন্ট এ ইউস করা ইমেজ অপটিমাইজ করার বেশ কিছু কৌশল রয়েছে। সেগুলোর মধ্যে বেশ কিছু উল্লেখযোগ্য কৌশল নিচে বর্ণনা করা হলো- কন্টেন্ট এ ইউস করা ইমেজ এর Alt Tag, Caption যুক্ত করতে হবে।

ইমেজকে যথাসাধ্য কম সাইজের করা। এসইও এক্সপার্টদের মতে আর্টিকেলে ব্যবহার করা ইমেজের সাইজ 50-100kb এর মধ্যে থাকা ভালো। আর্টিকেলে ব্যবহার করা ইমেজ যেন আর্টিকেল রিলেটেড হয়।

কোনোপ্রকার কপি ইমেজ আর্টিকেলে ব্যবহার করা যাবে না। যেমন অন্যের ওয়েবসাইট থেকে ছবি কালেক্ট করে নিজ আর্টিকেলে ব্যবহার করা। ইমেজকে Font Edit করে নিবেন।



Make Eye Teaching Title Of Your Article

টাইটেল একটি কন্টেন্ট এর খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। আপনি মূলত কোন টপিকের উপর আর্টিকেল লিখেছেন আপনি কোন কিওয়ার্ড টার্গেট করে আর্টিকেল পাবলিশ করেছেন Title আপনার আর্টিকেলের মূল বিষয়গুলোকে এক লাইনের মাধ্যমে প্রকাশ করে থাকে। তাই আপনার আর্টিকেলের টাইটেলকে Eye Teaching করার চেষ্টা করবেন।



How To Optimize Your Article Title?

এটি আর্টিকেলের জন্য টাইটেল ঠিক কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা নিশ্চয়ই আপনারা এতক্ষণে বুঝে গিয়েছেন। তাই কোনো আর্টিকেলকে অপটিমাইজ করার জন্য সর্বপ্রথম আপনাদেরকে সেই আর্টিকেলের টাইটেলকে অপটিমাইজ করতে হবে।

কোনো আর্টিকেলের টাইটেলকে অপটিমাইজ করার জন্য বেশ কিছু কৌশল রয়েছে। যেমন- টাইটেল এ সড়বোচ্চ ৫০-৬০ শব্দ ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন। মূল কিওয়ার্ড অবশ্যই টাইটেলে থাকতে হবে।

আপনার মূল কিওয়ার্ড এর সাথে সম্পর্ক রেখে আরো কিছু লোভনীয় শব্দ যুক্ত করতে হবে। টাইটেল (|) (-) এই চিহ্ন গুলো ব্যবহার করতে পারবেন। আপনার আর্টিকেলের টাইটেল এর শব্দ চয়ন এমন হতে হবে যেন আপনার মূল কিওয়ার্ডকে টার্গেট করে।



How To Optimize Article Description

একটি আর্টিকেলের ডেসক্রিপশনকে অপটিমাইজ করার বেশ কিছু কৌশল রয়েছে। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য কিছু কৌশল নিচে দেওয়া হলো- ডেসক্রিপশনে অবশ্যই আপনার মেইন কিওয়ার্ড থাকতে হবে।

আপনার আর্টিকেলের ডেসক্রিপশনে সেসব শব্দ ব্যবহার করবেন যেগুলো কিওয়ার্ড এর আওতায় পড়ে। আর্টিকেলের ডেসক্রিপশন ১৫০-২০০ মধ্যে হওয়া ভালো।

আপাতত এই কৌশলগুলো অনুসরণ করলে আপনি আপনার আর্টিকেলের ডেসক্রিপশন অপটিমাইজ করতে পারবেন।



শেষকথাঃ

বন্ধুরা আজকের আর্টিকেল এই পর্যন্তই। আজকের আর্টিকেলে লেখা হলো কীভাবে এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখা যায় সে-সম্পর্কে। আজকের এই আর্টিকেল পড়ার পর কেমন লেগেছে বা কোথাও যদি বুঝতে সমস্যা হয় তাহলে অবশ্যই কমেন্ট বক্সে জানাবেন। এরকম আরো নতুন নতুন টিপস বা বিভিন্ন বিষয়ের উপর আর্টিকেল পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি নিয়মিত ভিজিট করবেন। এতক্ষণ আমার সাথে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ।